tramp, ডোনাল্ড ট্রাম্প,

কোভিড-১৯ আক্রান্ত ও মৃত্যুর দিক দিয়ে বিশ্বে সর্বোচ্চ  অবস্থানে যুক্তরাষ্ট্র। গতকালও মারা গেছেন ২ হাজারের অধিক মানুষ। স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, লকডাউন উঠিয়ে নিলে পরিস্থিতি ভয়াবহ হবে, মৃত্যুর হার বেড়ে যাবে। কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ড ডোনাল্ড ট্রাম্প সেটি স্বীকার করে নিয়েই লকডাউন তুলে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যেতে চান।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ঘোষণা দিয়েছেন, কোভিড-১৯ মোকাবেলায় গঠিত হোয়াইট হাউসের টাস্কফোর্স ভেঙে দিতে যাচ্ছেন তিনি। লকডাউন খুলে দিলে আরো অধিক নাগরিকের মৃত্যু হলেও মার্কিন অর্থনীতি রক্ষার্থে সেদিকে যেতে হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

মঙ্গলবার অ্যারিজোনার মাস্ক তৈরির কারখানা পরিদর্শনকালে ট্রাম্প নিশ্চিত করেছেন যে, টাস্কফোর্স আর প্রয়োজন হবে না। ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সও পরামর্শ দিয়েছেন, কয়েক সপ্তাহের মধ্যে সেটি ভেঙে দেয়া যেতে পারে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ভাইস-প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স এবং টাস্কফোর্স ‍দুর্দান্ত কাজ করেছে। কিন্তু আমরা এখন ব্যতিক্রমী কিছু করতে যাচ্ছি। যা নিরাপত্তা এবং পুনরায় লকডাউন খুলে দেয়ার পথ। আমরা দেশকে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে চাচ্ছি। আর তার জন্য আমাদের অন্য একটি গ্রুপ কাজ করবে।

যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ৭২ হাজার ২৭১ জনের। আর মোট আক্রান্ত হয়েছে ১২ লাখ ৩৭ হাজার। দেশটিতে এখনো প্রতিদিন মৃত্যু হচ্ছে ২ হাজারের অধিক মানুষের।

মার্কিন স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, লকডাউন স্বাভাবিক করে ব্যবসা-বাণিজ্যগুলো আবার শুরু করলে ভাইরাস আরো বেশি ছড়িয়ে পড়বে।

কিন্তু ডোনাল্ড ট্রাম্প স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের এই হুঁশিয়ারিকে পাত্তা দিতে চান না। এমনকি তিনি লকডাউন শিথিল করার ব্যাপারে নিজের কর্তৃত্বকেই চূড়ান্ত বলে দাবি করেছেন।

তিনি মৃত্যুর আশঙ্কা স্বীকার করে বলেছেন যে, মার্কিন অর্থনীতি পুনরায় চালু করতে আরও অনেক নাগরিক মারা যেতে পারেন। তার সম্ভাবনা রয়েছে। তবুও আমাদেরকে সেদিকে যেতে হবে।

আরও পড়ুন:

গেঞ্জির কাপড়ের মাস্ক অনেক বেশি কার্যকর “যুক্তরাষ্ট্রের ইলিনয় ইউনিভার্সিটি”

সব ধরনের ‘জল্পনা-কল্পনা’ আর ‘গুঞ্জন’কে উড়িয়ে দিয়ে প্রকাশ্যে এলেন কিম

করোনাভাইরাস: আমাদের স্বাস্থ্যঝুঁকি ও প্রয়োজনীয় কিছু উদ্যোগ

Facebook Comments