রকেট হামলা

ফের একবার ইরাকের মার্কিন দূতাবাসের কাছে উড়ে এল একের পর এক রকেট হামলা । বাগদাদের গ্রিন জোন যেখানে একাধিক সরকারি অফিস এবং অন্যান্য অফিসও রয়েছে সেখানে এই ঘটনা ঘটেছে বলেই সূত্র মারফত জানা গিয়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে এই একি ঘটনা একাধিকবার ঘটেছে, সেই রেশ এখনও কাটেনি। শুরু হয়েছে ইরান-আমেরিকা সম্পর্কে টানাটানি।

ইরাকের রাজধানী বাগদাদের গ্রিন জোন এর অভ্যন্তরে  তিনটি রকেট আঘাত হেনেছে। এই গ্রিন জোনে সরকারি অফিস ও বিদেশী দূতাবাসগুলো অবস্থিত। আজ মঙ্গলবার বাগদাদের গ্রিন জোনে তিনটি কাতিউসা রকেট হামলা হয়েছে। তিনটি রকেটের মধ্যে দুটি মার্কিন দূতাবাসের কাছে আঘাত হেনেছে। ইরাকি পুলিশের বরাতে সংবাদমাধ্যম রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে।

আরও পড়ুন: আফ্রিকার শীর্ষ ধনী নারী ইসাবেল ডস সান্টোস। গোপন তথ্য এবার ফাঁস হয়েছে

এই ঘটনায় এখনও কোনও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি। সোশ্যাল মিডিয়ায় কিছু ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে যেখানে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে, দূতাবাস চত্বরে জরুরি সাইরেন বাজছে।

গত ৩ জানুয়ারি ইরাকের রাজধানী বাগদাদের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ড্রোন হামলা চালিয়ে ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনী কুদস ফোর্সের প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যা করা হয়।

রকেট হামলা বাগদাদের গ্রিন জোনে
বাগদাদের গ্রিন জোনের অভ্যন্তরে তিনটি রকেট হামলা

ইরানের কুদস ফোর্সের প্রধান লে. জেনারেল সোলাইমানির মৃত্যুর ঘটনাকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্র এবং ইরানের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা শুরু হয়েছে।

তার মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে গত ৮ জানুয়ারি ইরাকে অবস্থিত দুটি মার্কিন সামরিক ঘাঁটিতে এক ডজনের বেশি ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। এখন পর্যন্ত ইরাকে মার্কিন ঘাঁটি লক্ষ্য করে কয়েক বার হামলার ঘটনা ঘটেছে।

আরও পড়ুন: রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে সহায়তা দিতে প্রস্তুত জাপান, নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত

প্রসঙ্গত, চলতি মাসে আরও কয়েকবার বাগদাদের গ্রিন জোন রকেট হামলা ঘটনা ঘটেছে। এসব হামলার জন্য ইরান সমর্থিত আধাসামরিক বাহিনীকে দায়ী করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। তবে কোনো পক্ষই এখনও পর্যন্ত এসব হামলার দায় স্বীকার করেনি।

Facebook Comments