Head part of the Fish

মাছের কোন অংশ স্বাস্থের পক্ষে সবচেয়ে উপকারী

মাছেভাতে বাঙালী। আগে বাড়ীর জামাই বা গৃহ প্রধানকে মাছের মাথা খেতে দেয়া হতো সম্মান করে ।

যদিও মাছের মুল চাহিদা এর মাংস বা আমিষের জন্য, যাকে ফিলেট বলে কিন্তু এর অন্য অংশগুলোও গুরুত্বপূর্ণ ওমেগা-৩ ফ্যাটি এসিড ও অনেক ভিটামিনে সমৃদ্ধ যা আমরা ফেলে দিই। এটা আমার নয়, জাতিসংঘের এফএও এর বক্তব্য।

মাছের ফেলে দেয়া অংশগুলোয় ফিলেটের তুলনায়, মাছ ভেদে ১০, ১০০, ও ১০০০ গুন বেশি ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড ও এর অন্য উপাদান ( সেরেব্রাল ওমেগা) যেমন, DHA (Docosahexaenoic acid) এবং EPA (eicosapentaenoica

মাছের ত্রিশ থেকে পঞ্চাশ শতাংশ ফেলে দেয়া আমাদের মাছ-কুটাবাছার সংস্কৃতি। পুষ্টির হিসেবে বেশিরভাগ পুষ্টি কিন্তু আমরা ফেলে দিচ্ছি।

কড মাছের শুধু ফুলকায় সমগ্র মাছের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ ওমেগা ৩ ফ্যাটি এসিড আছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সেটা ফেলে দেয়া হয়।

শিশুদের মস্তিষ্কের গঠন, হাড়ঁ, চোখ ও বড়দের হৃদরোগ প্রতিরোধে DHA, EPA এর ভুমিকা অপরিসীম। গবেষণায় দেখা গেছে, গর্ভবতী মহিলারা নিয়মিত এসব খেলে, শিশুর পাঁচ বছর বয়সে আইকিউ অন্যদের তুলনায় গড়ে ৬ পয়েন্ট বেশি হয়।

টুনা ও রুই জাতীয় মাছে এসবের প্রাচুর্য। আমাদের মস্তিষ্কের বেশিরভাগই DHA নামক লং চেইন ফ্যাটি দিয়ে তৈরি। আর এই জিনিস বেশি থাকে মাছের মাথা, মুখ ও চোখের আশপাশ আর ফুলকায়।

আরো-পড়ুনঃ গ্যাস্ট্রিকের সমস্যার আড়ালে আসলে করোনার হানা! চিন্তা বাড়াচ্ছে চিকিত্সকদের

পৃথিবীর ৩০ শতাংশ মানুষ DHA স্বল্পতায় ভুগছে, যা একটা চ্যালেন্জ পুষ্টিবিদদের জন্য।
আরো ৩০০ কোটি মানুষ আয়রন, ভিটামিন-এ, জিংক ও আয়োডিন স্বল্পতায় ভুগছে, যা মাছের ফেলে দেয়া অংশ থেকে সংগ্রহের করা যায় (এফএও) ।

শুধু নরওয়ের জেলেরাই বছরে কয়েক হাজার টন মাছের মাথা পানিতে ফেলে দেয়, তাদের বোঝা কমাতে।

আরো-পড়ুনঃ গোপালগঞ্জে নতুন ৬ জনের করোনাভাইরাস পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে

তাই এসব সংগ্রহ করে আফ্রিকার ও দঃ আমেরিকার দরিদ্র শিশু ও স্কুলছাত্রদের প্রক্রিয়াজাত করে উপাদেয় স্যুপ হিসেবে খাওয়ানোর উদ্যোগ চলছে। এতে শিশুদের মস্তিষ্কের, চোখের ও হাড়ের উন্নতি হবে।

লেখকঃ Md Samshuddin, ঔষধ ও স্বাস্থ্যপরিচর্যা এ সহকারী অধ্যাপক (2019-বর্তমান)

Facebook Comments