করোনা ভাইরাস

চিনে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাস । ওই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন সেনঝেনে কর্মরত ভারতীয় এক শিক্ষক প্রীতি মাহেশ্বরী। একথা স্বীকার করেছেন তাঁর স্বামী অংশুমান খোয়াল। ইতিমধ্যেই ওই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চিনে মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের। অসুস্থ হয়ে পড়েছেন ৩০০ জন। তারমধ্যে ৫২ জন মধ্যম অবস্থায় এবং ১২ জন গুরুতর অবস্থায় আছে।

চিনের স্বাস্থ্য দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, ওই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে মানুষের শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে। শুধু তাই নয় দ্রুত তা দেশের বিস্তীর্ণ এলাকায় ছড়িয়ে পড়তে পারে।

চিনের ইংরেজি দৈনিক চায়না ডেইলি-র এক প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের যাঁরা চিকিত্সা করছেন সেইসব স্বাস্থ্য কর্মীদের অনেকেই অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

 চিনের করোনা ভাইরাস
করোনা ভাইরাস

এদিকে, এনিয়ে আগাম সতর্কতা নিয়েছে বাংলাদেশ ঢাকা এয়ার পোর্ট। 

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন এএইচএম তৌহিদ উল আহসান জানান, যাত্রীদের পরীক্ষা নিরীক্ষা করানোসহ ভাইরাস প্রতিরোধে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন: এলপিজির দাম আকাশ্চুঙ্গী: বিশ্ববাজার অস্থির, দুশ্চিন্তা বাংলাদেশের কোম্পানিগুলোর

তিনি বলেন, চীন থেকে আসা তিনটি সরাসরি ফ্লাইটের যাত্রীদের ফিজিক্যাল স্ক্রিনিং করানো হবে। বিমানবন্দরে স্থাপিত থার্মাল স্ক্যানারের ভেতর দিয়ে আসার সময় (চীনের ভাইরাস) সিগন্যাল বা সংকেত দিলে ওই যাত্রীকে পরীক্ষা করবেন স্বাস্থ্যকর্মীরা।

ভিডিওতে বিমানটিতে যাত্রীদের তাপমাত্রা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে

সাধারণত কারও শরীরের তাপমাত্রা ১০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট থাকলেও থার্মাল স্ক্যানার সংকেত দেয়। এরপর ওই যাত্রীকে বিমানবন্দরে কোয়ারেনটাইন রুমে রেখে পর্যবেক্ষণ ও চিকিৎসা দেওয়া হবে। শারীরিক অবস্থা অনুযায়ী তাঁকে (যাত্রী) কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে।

বাংলাদেশ থেকে যেসব মানুষ চিনে যাচ্ছেন তাদের সতর্কতা অবলম্বন করতে বলেছে বিদেশ মন্ত্রক।

আরও পড়ুন: বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারী হিসেবে চিহ্নিত করে ভেঙে ফেলা হল প্রায় একশো ঝুপড়ি

করোনা ভাইরাস নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন চিনের রাষ্ট্রপতি শি জিন পিংও। সোমবার তিনি বলেন, হুয়ান ও অ্যান্য জায়গায় ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাসকে সহজভাবে নেওয়া যাবে না। দল, সরকার ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য সংস্থাকে এনিয়ে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিতে হবে।

Facebook Comments