আদালতে আসামিকে পুলিশের মারধর
আদালতে আসামিকে পুলিশের মারধর

বান্দরবানে আদালতের হেফাজতে থাকা আসামিকে মারধর, এই অভিযোগের মামলায় এক উপপরিদর্শককে (এসআই) হাজির হতে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। তাঁর নাম শাখাওয়াত হোসেন। তিনি আলীকদম থানার এসআই।

গতকাল বুধবার বান্দরবানের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মুজাহিদুর রহমান এই আদেশ দেন। ৩০ ডিসেম্বর ওই এসআইকে হাজির হয়ে জবাব দিতে বলা হয়েছে। 

আলীকদম থানার এসআই শাখাওয়াত হোসেন নির্যাতনের অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে মামলার ব্যাপারে তিনি কোনো কিছু জানেন না। তাঁর কাছে অভিযোগসংক্রান্ত কোনো চিঠিপত্রও দেওয়া হয়নি। 

তবে আলীকদম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী রাকিব উদ্দিন বলেন, এসআই শাখাওয়াতের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হওয়ার বিষয়টি সত্য। তাঁকে আদালতে হাজির হয়ে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালত সূত্র জানায়, আলীকদম থানা থেকে মাদকের মামলার আসামি মো. নুরকে গত সোমবার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নিয়ে আসা হয়। আদালত জবানবন্দির জন্য বিধি মোতাবেক তাঁকে তিন ঘণ্টা সময় দেন।

এ সময় তাঁকে আদালতের হেফাজতে অফিস সহায়ক আরিফ হোসেনের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়। কিন্তু মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আলীকদম থানার এসআই শাখাওয়াত আসামি নুরকে নিয়ে যান। তাঁকে প্রথমে নকল শাখায় নিয়ে শেখানো মতে জবানবন্দি দেওয়ার জন্য হুমকি দেন।

আরও-পড়ুনঃ ঘন কুয়াশা জনিত পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ১০ ঘণ্টা ফেরি বন্ধ, দীর্ঘ যানজট

আসামি নুর সেভাবে জবানবন্দি দিতে অস্বীকার করায় তাঁকে কিলঘুষি ও লাথি মারেন। সেখানে উপস্থিত আইনজীবী ও কর্মচারীরা প্রতিবাদ করলে এসআই শাখাওয়াত আসামিকে আদালতের হাজতখানায় নিয়ে আবার নির্যাতন করেন। পরে আসামি মো. নুরকে জবানবন্দি দিতে আনা হলে তাঁর ওপর নির্যাতনের অভিযোগ আদালতে তুলে ধরেন। আদালত এসআইয়ের বিরুদ্ধে করা অভিযোগ আমলে নেন। 

 প্রত্যক্ষদর্শী আইনজীবী কৌশিক দত্ত প্রথম আলোকে বলেছেন, আদালতের হেফাজতে থাকা আসামিকে আইনজীবীদের সামনে এবং আদালত ভবনের ভেতরে মারধর করার ঘটনা তিনি আগে কখনো দেখেননি। 

Facebook Comments