লরেনের সঙ্গে বিচ্ছেদের জন্য দায়ি সৎ মা সোনি: পূজা ভাট
লরেনের সঙ্গে বিচ্ছেদের জন্য দায়ি সৎ মা সোনি: পূজা ভাট

লরেনের সঙ্গে বিচ্ছেদের জন্য সোনিকেই দায়ি করেন পূজা ভাট । বাবার দ্বিতীয় স্ত্রী সোনি রাজদানকে একেবারেই পছন্দ করতেন না পূজা ভাট। মহেশ ভাটের দ্বিতীয় বিয়ের পর বাবার সঙ্গে ক্রমশ সম্পর্ক খারাপ হতে শুরু করে পূজার।

শেষ পর্যন্ত কী এমন হয় যে সৎ মা সোনি রাজদানকে মেন নেন পূজা ভাট ? একটি সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাতকারে সোনি রাজদানকে নিয়ে মুখ খোলেন মহেশ ভাটের অভিনেত্রী-কন্যা।

আরও পড়ুন :  মেয়ে নাইশাকে নিয়ে জোর সমালোচনা, মুখ খুললেন অজয় দেবগণ

জানা যায়, কেরিয়ারের মাঝ পথেই লরেন ব্রাইটকে বিয়ে করেন (Mahesh Bhatt) মহেশ ভাট। মহেশ ভাটের সঙ্গে বিয়ের পর ধর্মান্তরিত হন লরেন। পালটে ফেলেন নিজের নামও। সেই থেকে মহেশ ভাট-পত্নী কিরণ ভাট হিসেবেই পরিচিত হন লরেন।

ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত লরেনের সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা পড়ার ৪ বছরের মধ্যে জন্ম হয় (Pooja Bhatt) পূজা ভাটের। মেয়ে বড় হওয়ার কিছুদিনের মধ্যেই  পারভিন ববির সঙ্গে নতুন করে সম্পর্কে জড়ান মহেশ ভাট।

(Parveen Babi) পারভিন ববির সঙ্গে মহেশ ভাটের সম্পর্কের জেরেই ক্রমশ দূরে সরে যেতে শুরু করেন কিরণ ভাট। মহেশ ভাটের সঙ্গে ওই সময় বিচ্ছেদ না হলেও কিরণ ক্রমশ দূরে সরে যেতে শুরু করেন। কিন্তু পারভিন ববির সঙ্গে দু’ বছরের বেশি সম্পর্ক স্থায়ী হয়নি মহেশ ভাটের। পারভিন ববির সঙ্গে বিচ্ছেদর পর সোনি রাজদানের সঙ্গে নতুন করে সম্পর্কে জড়ান মহেশ ভাট।


স্ত্রী, সন্তান থাকায় মেয়ের সঙ্গে সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি (Soni Razdan) সোনি রাজদানের বাবা-মা। অবশেষে লুকিয়েই বিয়ে সারেন মহেশ ভাট। প্রথম স্ত্রীর সঙ্গে বিচ্ছেদ না হওয়ায়, ধর্ম পরিবর্তন করে তবেই সোনি রাজদানের সঙ্গে সাতপাকে বাঁধা পড়েন মহেশ ভাট।

এরপর ১৯৮৮ সালে জন্ম হয় মহেশ ভাট এবং সোনি রাজদানের প্রথম সন্তান শাহিন ভাটের। ১৯৯৩ সালে জন্ম হয় (Alia Bhatt) আলিয়া ভাটের।
মহেশ ভাটের সঙ্গে সোনি রাজদানের বিয়ের পর কিরণ ভাটের সঙ্গে বন্ধুত্ব বজায় রেখেই চলেন মহেশ ভাট।

আরও-পড়ুনঃ নাগরিকত্ব আইনের বিক্ষোভ নিয়ে টুইট ভারতীয় সেনা প্রধান

বিষয়টি নিয়ে প্রথম দিকে একেবারেই খুশি ছিলেন না মহেশ-কিরণের মেয়ে পূজা ভাট। তিনি বলেন, বাবাকে তাঁদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়ে যাওয়ায়, তিনি খুশি ছিলেন না। সোনির জন্যই তাঁর মায়ের সঙ্গে বাবার বিচ্ছেদ হয়, এমনও মনে করতেন পূজা ভাট।

অবশেষে মা কিরণ ভাটই বোঝাতে শুরু করেন পূজাকে। যা হওয়ার ছিল, সেটাই হয়েছে। এরজন্য বাবাকে ঘৃণা করার কোনও প্রয়োজন নেই পূজাকে বোঝাতে শুরু করেন কিরণ ভাট। অবশেষে মায়ের কথাতেই সোনি রাজদানের সঙ্গে বাবার সম্পর্ক মেনে নেন বলে একটি সংবাদমাধ্যমের সাক্ষাতকারে মুখ খোলেন পূজা ভাট।  

Facebook Comments