বাংলার পরিস্থিতি জরুরি অবস্থার থেকেও খারাপ। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারকে দুষে এমনই দাবি বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের। তাঁর কথায়, শাসকদলের নেতা-মন্ত্রীরা অবাধে ত্রাণ-বিলির সুযোগ পেলেও প্রতি মুহূর্তে বাধা দেওয়া হচ্ছে বিজেপি নেতাদের।

আমফান বিধ্বস্ত এলাকাগুলিতে ত্রাণ-সামগ্রী দিতে শাসকদলের মদতে বিজেপি নেতা-সাংসদদের পুলিশ বাধা দিচ্ছে বলে অভিযোগ দিলীপ ঘোষের।

করোনার সংক্রমণ বেড়েই চলেছে বাংলায়। বিশেষত পরিযায়ী শ্রমিকরা রাজ্যে ঢুকতেই লাফিয়ে বাড়ছে সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে ঘূর্ণিঝড় আমফান ব্যাপক তাণ্ডব চালিয়েছে রাজ্যের একাংশে।

বিপর্যস্ত এলাকাগুলিতে এখনও ঘরছাড়া বহু পরিবার। সরকারি ত্রাণ শিবিরগুলিতে দিন কাটাতে বাধ্য হচ্ছেন অনেকে। বহু মানুষের ঘরবাড়ি নিশ্চিহ্ন হয়ে গিয়েছে প্রবল ঝড়ে। গৃহহীন পরিবারগুলির পাশে দাঁড়াতে চায় বিজেপি।

দিলীপ ঘোষের অভিযোগ, ত্রাণ-বিলি করতে বিজেপি নেতাদের বাড়ি থেকেই বেরোতে দেওয়া হচ্ছে না। দক্ষিণ ২৪ পরগনার ঝড় বিধ্বস্ত এলাকায় দলের সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়কে যেতে বাধা দেওয়ার ঘটনারও উল্লেখ করেন দিলীপ ঘোষ। বিজেপি রাজ্য সভাপতির দাবি, ‘পশ্চিমবঙ্গের অবস্থা জরুরি অবস্থার থেকেও খারাপ। বিজেপি নেতা-নেত্রীদের বাড়ি থেকে বেরোতে দেওয়া হচ্ছে না।’

আরও-পড়ুনঃ নাকা কেভ কি সত্যি কোনো অভিশপ্ত সাপ?

করোনা মোকাবিলায় মাস্ক-স্যানিটাইজার বিলিই হোক বা ঘূর্ণিঝড় বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন। বিজেপির অভিযোগ, সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর উদ্যোগ নিলেই শাসকদলের মদতে পুলিশ তাঁদের বাধা দিচ্ছে। অথচ তৃণমূলের নেতা-মন্ত্রীরা অবাধে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে যাচ্ছেন।

আরও-পড়ুনঃ অনুমোদন নিয়েই রোগী সেজে দেশ ছেড়েছেন সিকদারের দুই ছেলে

Facebook Comments